এই সময়ের সবচেয়ে বেশি আয় করা হট পর্ণস্টারদের তালিকা (ভিডিও-সহ) বিনোদন।

জেনে নিন কোন কোন খাবার আপনার দাম্পত্য সুখ বাড়ায়:- (ভিডিওটি নিচে রয়েছে)

 কাজের চাপে বৈবাহিক জীবনের আনন্দ ক্রমশ ফিকে হয়ে যাচ্ছে। শক্তির অভাবে দাম্পত্যের একান্ত সুখ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন হয়তো। চিকিৎসকদের মতে, অতিরিক্ত কাজ, মানসিক চাপ ও ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া না করাই এর কারণ। তাই সুস্থ-স্বাভাবিক যৌনতার জন্য নারী-পুরুষ উভয়ের চাই পটাসিয়াম, ফাইবার, ভিটামিন বি ৬, ভিটামিন এ এবং সি যুক্ত খাবার। এবার আসুন জেনে নিই কোন কোন খাবার আপনাকে যৌনভাবে শক্তিশালী করবে:

১. স্ট্রবেরি: ফলিক অ্যাসিড ও ভিটামিন বি’র অন্যতম উৎস স্ট্রবেরি। এ ফল নারীদের বন্ধ্যাত্ব কমিয়ে উর্বরতা বাড়ায় ও পুরুষের যৌন সক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। পুরুষের শুক্রাণু বৃদ্ধিতেও সহায়তা করে।

২. মধু: মধু খেলে মস্তিষ্ক শক্তি লাভ করে। ফলে শরীরে স্বাভাবিক শক্তি তৈরি হয় ও রতিশক্তি বাড়ে।

৩. রসুন‌‌: রসুন যৌন ক্ষমতা সৃষ্টি করে ও শুক্রাণু তৈরিতে সাহায্য করে। ‌পাকস্থলি ও অ্যাজমা রোগের জন্যও রসুন উপকারী।‌

৪. চকলেট: চকলেটে ইথাইল মাইন নামক উপাদান থাকে। গবেষকরা এর নাম দিয়েছেন, ‘লাভ কেমিক্যাল’। তাই সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্যও নিয়মিত ডার্ক চকলেট খাওয়া যেতে পারে।

৫. পুদিনা পাতা: শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে পুদিনা পাতার রস খুব উপকারী। কিছুক্ষণ পুদিনা পাতা রেখে সেই পানি দিয়ে স্নান করলে শরীর ও মন চাঙ্গা থাকে।

৬. স্যালমন মাছ: নারীদের পিরিয়ডজনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে স্যালমন মাছ। এছাড়াও ব্যথা, ক্র্যাম্প ও গর্ভে থাকা শিশুর জন্য উপকারী খাদ্যগুণ রয়েছে এ মাছে।

৭. আভাকাডো: সুস্থ যৌন জীবনের জন্য নারী-পুরুষ উভয়েরই সঠিক ব্যায়াম ও স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের পাশাপাশি ওজন নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি। আভাকাডো এমন এক স্বাস্থ্যকর খাদ্য, যা ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমান ফলিক অ্যাসিড, লিবডো বুস্টিং ও ভিটামিন সি, যা দম্পতিদের যৌন জীবন আনন্দিত রাখতে সাহায্য করে।

৮. শতমূলী: শতমূলী পুষ্টিকারক ও ‌শরীরে শক্তিবর্ধক। এর তাজা শিকড়ের রস গনোরিয়া রোগের ক্ষেত্রে উপকারী। শতমূলী যৌন শক্তিবর্ধক ও বীর্য সৃষ্টিকারী। এর মূলে থাকা উপাদানটি যৌবন সুরক্ষায় কাজ করে এবং এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

ভিডিওটি দেখতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন:-

বিয়ের রাতে নববধূর সতীত্ব পরীক্ষা, যে ঘটনার জন্মদিল!

বিয়ের রাতেই কনের সতীত্ব পরীক্ষা করে দেখা হয়।  পুণের কঞ্জরভাট গোষ্ঠীতে এমন রীতিই প্রচলিত রয়েছে।  এই রীতির বিরোধিতা করতে গিয়েছিলেন সেই গোষ্ঠীরই তিন জন।  আর তাতেই বাকি সদস্যরা রেগে গিয়ে তিন জনকে বেধরক মারধর করেন।

এই তিন জন প্রতিবাদী হোয়াটসঅ্যাপে ‘স্টপ দ্য ভি রিচুয়াল’ নামে একটি গ্রুপ চালাতেন।  এই গ্রুপের মূল উদ্দেশ্য হল মহিলাদের জন্য তৈরি এই রীতিকে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেওয়া।  এই গ্রুপের মাধ্যমেই তাঁরা মানুষকে সচেতন করতেন।

অন্যদিকে কঞ্জরভাট গোষ্ঠী বিয়ের রাতে কনের সতীত্ব পরীক্ষা ও পণ নেওয়ার মতো কিছু অপ্রগতিশীল কাজকর্ম চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।  এই নিয়েই রবিবার পঞ্চায়েত বসিয়েছিল এই গোষ্ঠী।  কিন্তু এই তিন সদস্য পঞ্চায়েত সভায় উপস্থিত না থেকে একটি বিয়ে বাড়িতে যান।

এক দিকে পঞ্চায়েত সভায় অনুপস্থিতি আর অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় মহিলাদের সতীত্ব পরীক্ষা করে দেখার বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করা— এই দু’টি কারণে গোষ্ঠীর ৪০ জন সদস্য রবিবার রাতে ওই তিন সদস্যকে বেধরক মারেন।

তিন জন এর পরে মহারাষ্ট্র অন্ধশ্রদ্ধা নির্মূলন সমিতির সাহায্য নিয়ে ওই গোষ্ঠীর ৪০ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।  সেই অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার সকালে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  ভারতে এখনও যেসব কুসংস্কার বিশ্বাস করা হয় তার বিরুদ্ধেই মানুষকে সচেতন করে মহারাষ্ট্র অন্ধশ্রদ্ধা নির্মূলন সমিতি।

মতামত

comments

Post Author: admin