স্টেডিয়ামে খেলা দেখার অনুমতি পাচ্ছে সৌদি নারীরা

আগামী বছর থেকে সৌদি আরবে নারীরা স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সুযোগ পাবে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা।দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ সংস্থার বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, ২০১৮ সাল থেকে রিয়াদ, জেদ্দা ও দাম্মামের স্টেডিয়ামগুলোতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে খেলা দেখার সুযোগ দেওয়া হবেশিগগির ওই তিনটি স্টেডিয়ামে এ-সংক্রান্ত প্রস্তুতি শুরু হবে বলে জানিয়েছে দেশটির ক্রীড়া কর্তৃপক্ষ। বলেছে, “২০১৮ সালের শুরু থেকেই ওই স্টেডিয়ামগুলোতে পরিবারের সদস্যদের জন্য জায়গা প্রস্তুত করতে চাই।”প্রস্তুতির অংশ হিসেবে স্টেডিয়ামে নারীদের জন্য আলাদা রেস্তোরাঁ, ক্যাফে এবং বড়পর্দার টেলিভিশনের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান তারা।অতি রক্ষণশীল সৌদি আরবে নারীদের কঠোর অনুশাসনের মধ্যে থাকতে হয়। সেখানে নারীদের জন্য পোশাক নির্দিষ্ট করে দেওয়া আছে। এছাড়াও সৌদি আরবে অভিভাবকত্বের নিয়ম অনুযায়ী নারীরা যদি পড়াশুনা, ভ্রমণ কিংবা অন্যান্য কাজে যেতে চায় তাহলে পরিবারের পুরুষ সদস্যদের অনুমতি নিয়ে যেতে হয়।তবে সম্প্রতি দেশটির সরকার নারীদের কিছু সুযোগ সুবিধা দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।যার ধারাবাহিকতায় গত মাসে সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। আগামি বছর জুন মাস থেকে দেশটির নারীরা গাড়ি চালাতে পারবেন।সৌদি আরবে সমাজ ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে বড় ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।৩২ বছরের যুবরাজের ঘোষিত দীর্ঘমেয়াদী ওই পরিকল্পনা ‘ভিশন ২০৩০’ নামে পরিচিত।

বুধবার যুবরাজ বলেন, মূলত মধ্যপন্থী ইসলামের প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে তিনি আধুনিক সৌদিআরব গড়ার পরিকল্পনা করেছেন।“সৌদিআরবের ৭০ শতাংশ মানুষের বয়স ৩০ বছরের নীচে এবং তারা এমন একটি জীবন ব্যবস্থা চায় যেখানে ধর্মীয় সহিষ্ণুতা থাকবে।”যদিও সৌদি আরবের মত অতি রক্ষণশীল দেশে এ পরিকল্পনার বাস্তবায়ন সহজ হবে না।গতমাসে রিয়াদের কিং ফাহদ স্টেডিয়ামে জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে নারীদের স্টেডিয়ামে ঢোকার অনুমতি দেওয়া কারণে বর্তমান সরকারকে কট্টরপন্থীদের কড়া সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে।

 

মতামত

comments

Post Author: admin