মাথা প্রতিস্থাপন সফল! দাবি বিজ্ঞানীর

চাঞ্চল্যকর সাফল্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে। প্রথম বার সফলভাবে প্রতিস্থাপিত হল মানুষের মাথা। ইতালীয় শল্যচিকিৎসক সের্গিও কানাভেরোর তরফে অন্তত তেমনই দাবি করা হয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরেই কানাভেরো দাবি করছিলেন, এক মানুষের শরীরে অন্য মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করা সম্ভব। কিন্তু ইউরোপ বা আমেরিকার কোনো দেশের সরকারই তাকে এমন কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ দিতে চায়নি। নৈতিক কারণেই এমন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেওয়া হয় অধ্যাপক কানাভেরোকে। কিন্তু ইতালীয় শল্যচিকিৎসক তথা চিকিৎসা বিজ্ঞানের অধ্যাপক কানাভেরো জানিয়েছেন, চিনের এক গবেষণাগারে সফলভাবে প্রতিস্থাপিত হয়েছে মানুষের মাথা।

অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় সাংবাদিক সম্মেলন করে কানাভেরো জানিয়েছেন, এক মানুষের শরীরে অন্য মানুষের মাথা সফলভাবে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। এক জনের ধড়ে অন্য এক জনের মাথা বসিয়ে মেরুদণ্ড, স্নায়ু এবং ব্লাড ভেসেলগুলো সফলভাবে জুড়ে দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। তবে এই পরীক্ষামূলক প্রতিস্থাপন জীবিতদের শরীর ব্যবহার করে হয়নি। এর পরে সেই ধাপের দিকেই তিনি এগোচ্ছেন বলে কানাভেরো জানিয়েছেন।

খুব শীঘ্রই কোনো ব্রেন ডেথ হওয়া ব্যক্তির শরীরে অন্য ব্যক্তির মাথা বসিয়ে প্রমাণ করে দেওয়া হবে, মানুষের মাথা প্রতিস্থাপনও সম্ভব। জানিয়েছেন কানাভেরো। চিনের হারবিন মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে এই পরীক্ষামূলক প্রতিস্থাপন হয়েছে বলে খবর। এই অস্ত্রোপচারে ১৮ ঘণ্টা সময় লেগেছে বলে জানানো হয়েছে। চিনা চিকিৎসক রেন শিওয়াপিং এই প্রতিস্থাপন প্রক্রিয়ায় সের্গিও কানাভেরোর সঙ্গী হয়েছিলেন।

গত বছর শিয়াওপিং সফলভাবে হনুমানের শরীরে মাথা প্রতিস্থাপন করেছিলেন। শিওয়াপিং-কে সঙ্গে নিয়ে তিনি খুব শীঘ্রই জীবিত মানুষের মাথা প্রতিস্থাপন করতে চলেছেন বলে কানাভেরো জানিয়েছেন।

 

মতামত

comments

Post Author: admin