দীর্ঘ ২৯ বছর পর ফিরে পেলেন সমুদ্রে ভাসিয়ে দেওয়া সেই পুরুনো চিঠি।

তারিখটা ২৯ বছর আগের। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর। খেলার ছলেই চিঠি লিখে বোতলে পুরে সমুদ্রে ভাসিয়েছিল আট বছরের ছোট্ট মেয়েটি। সেই চিঠিই আবার ফেরত এল। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে। সেই ছোট্ট বয়সের অপরিণত হস্তাক্ষরে লেখা চিঠির বয়ান পড়ে চমকে উঠল মেয়েটি। এ যে তারই লেখা চিঠি। সে-ই তো এটা ভাসিয়ে দিয়েছিল সাগরের বুকে।

আট বছরের ছোট্ট মিরান্ডা চাভেজ এখন ৩৭ বছরের তরুণী। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া হাতড়ে তার খোঁজ পেয়েছেন লিন্ডা হাম্ফ্রি এবং তার স্বামী ডেভিড। হাম্ফ্রি দম্পতি জানিয়েছেন, চিঠির নীচে লেখা নাম ঠিকানা দেখে লেখিকাকে শনাক্ত করেন তারা। চিঠি পড়ে জানা যায়, আজ থেকে ২৯ বছর আগে দক্ষিণ ক্যারোলিনার এডিস্টো সৈকতের ধারে বেড়াতে গিয়েছিলেন মিরান্ডা। সেখানেই এই চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ভাসিয়ে দেন তিনি। ২৯ বছর পরে সেই চিঠি উদ্ধার হয় জর্জিয়ার স্যাপেলো দ্বীপ থেকে। বোতল সমেত চিঠি খুঁজে পান হাম্ফ্রি দম্পতি। ডেভিড জানিয়েছেন, চিঠির নাম ও ঠিকানা দেখে তারা চিঠির ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। যেহেতু চিঠিতে লেখা ঠিকানা বদলে ফেলেছিলেন মিরান্ডা, তাই সোশ্যাল মিডিয়ার শরণাপন্ন হন হাম্ফ্রি দম্পতি।

তারিখটা ২৯ বছর আগের। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর। খেলার ছলেই চিঠি লিখে বোতলে পুরে সমুদ্রে ভাসিয়েছিল আট বছরের ছোট্ট মেয়েটি। সেই চিঠিই আবার ফেরত এল। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে। সেই ছোট্ট বয়সের অপরিণত হস্তাক্ষরে লেখা চিঠির বয়ান পড়ে চমকে উঠল মেয়েটি। এ যে তারই লেখা চিঠি। সে-ই তো এটা ভাসিয়ে দিয়েছিল সাগরের বুকে।

আট বছরের ছোট্ট মিরান্ডা চাভেজ এখন ৩৭ বছরের তরুণী। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া হাতড়ে তার খোঁজ পেয়েছেন লিন্ডা হাম্ফ্রি এবং তার স্বামী ডেভিড। হাম্ফ্রি দম্পতি জানিয়েছেন, চিঠির নীচে লেখা নাম ঠিকানা দেখে লেখিকাকে শনাক্ত করেন তারা। চিঠি পড়ে জানা যায়, আজ থেকে ২৯ বছর আগে দক্ষিণ ক্যারোলিনার এডিস্টো সৈকতের ধারে বেড়াতে গিয়েছিলেন মিরান্ডা। সেখানেই এই চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ভাসিয়ে দেন তিনি। ২৯ বছর পরে সেই চিঠি উদ্ধার হয় জর্জিয়ার স্যাপেলো দ্বীপ থেকে। বোতল সমেত চিঠি খুঁজে পান হাম্ফ্রি দম্পতি। ডেভিড জানিয়েছেন, চিঠির নাম ও ঠিকানা দেখে তারা চিঠির ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। যেহেতু চিঠিতে লেখা ঠিকানা বদলে ফেলেছিলেন মিরান্ডা, তাই সোশ্যাল মিডিয়ার শরণাপন্ন হন হাম্ফ্রি দম্পতি।

তারিখটা ২৯ বছর আগের। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর। খেলার ছলেই চিঠি লিখে বোতলে পুরে সমুদ্রে ভাসিয়েছিল আট বছরের ছোট্ট মেয়েটি। সেই চিঠিই আবার ফেরত এল। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে। সেই ছোট্ট বয়সের অপরিণত হস্তাক্ষরে লেখা চিঠির বয়ান পড়ে চমকে উঠল মেয়েটি। এ যে তারই লেখা চিঠি। সে-ই তো এটা ভাসিয়ে দিয়েছিল সাগরের বুকে।

আট বছরের ছোট্ট মিরান্ডা চাভেজ এখন ৩৭ বছরের তরুণী। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া হাতড়ে তার খোঁজ পেয়েছেন লিন্ডা হাম্ফ্রি এবং তার স্বামী ডেভিড। হাম্ফ্রি দম্পতি জানিয়েছেন, চিঠির নীচে লেখা নাম ঠিকানা দেখে লেখিকাকে শনাক্ত করেন তারা। চিঠি পড়ে জানা যায়, আজ থেকে ২৯ বছর আগে দক্ষিণ ক্যারোলিনার এডিস্টো সৈকতের ধারে বেড়াতে গিয়েছিলেন মিরান্ডা। সেখানেই এই চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ভাসিয়ে দেন তিনি। ২৯ বছর পরে সেই চিঠি উদ্ধার হয় জর্জিয়ার স্যাপেলো দ্বীপ থেকে। বোতল সমেত চিঠি খুঁজে পান হাম্ফ্রি দম্পতি। ডেভিড জানিয়েছেন, চিঠির নাম ও ঠিকানা দেখে তারা চিঠির ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। যেহেতু চিঠিতে লেখা ঠিকানা বদলে ফেলেছিলেন মিরান্ডা, তাই সোশ্যাল মিডিয়ার শরণাপন্ন হন হাম্ফ্রি দম্পতি।

তারিখটা ২৯ বছর আগের। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর। খেলার ছলেই চিঠি লিখে বোতলে পুরে সমুদ্রে ভাসিয়েছিল আট বছরের ছোট্ট মেয়েটি। সেই চিঠিই আবার ফেরত এল। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে। সেই ছোট্ট বয়সের অপরিণত হস্তাক্ষরে লেখা চিঠির বয়ান পড়ে চমকে উঠল মেয়েটি। এ যে তারই লেখা চিঠি। সে-ই তো এটা ভাসিয়ে দিয়েছিল সাগরের বুকে।

আট বছরের ছোট্ট মিরান্ডা চাভেজ এখন ৩৭ বছরের তরুণী। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া হাতড়ে তার খোঁজ পেয়েছেন লিন্ডা হাম্ফ্রি এবং তার স্বামী ডেভিড। হাম্ফ্রি দম্পতি জানিয়েছেন, চিঠির নীচে লেখা নাম ঠিকানা দেখে লেখিকাকে শনাক্ত করেন তারা। চিঠি পড়ে জানা যায়, আজ থেকে ২৯ বছর আগে দক্ষিণ ক্যারোলিনার এডিস্টো সৈকতের ধারে বেড়াতে গিয়েছিলেন মিরান্ডা। সেখানেই এই চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ভাসিয়ে দেন তিনি। ২৯ বছর পরে সেই চিঠি উদ্ধার হয় জর্জিয়ার স্যাপেলো দ্বীপ থেকে। বোতল সমেত চিঠি খুঁজে পান হাম্ফ্রি দম্পতি। ডেভিড জানিয়েছেন, চিঠির নাম ও ঠিকানা দেখে তারা চিঠির ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। যেহেতু চিঠিতে লেখা ঠিকানা বদলে ফেলেছিলেন মিরান্ডা, তাই সোশ্যাল মিডিয়ার শরণাপন্ন হন হাম্ফ্রি দম্পতি।

মতামত

comments

Post Author: admin