এক শিশুর দুইবার জন্ম !

ব্যতিক্রমী এক শিশু, যার জন্ম হয়েছে দুবার। একবার ২৩ সপ্তাহে এবং আরেকবার ৩৩ সপ্তাহে পৃথিবীতে এসেছে এই শিশু। ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের হিউস্টনে।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, হিউস্টন শহরের বাসিন্দা মার্গারেট বোয়েমার

সম্প্রতি তার কন্যার দুবার জন্ম দিয়েছেন, যার পেছনে রয়েছে অন্য কাহিনী।

এনডিটিভি জানায়, গর্ভে থাকা অবস্থায় ১৬ সপ্তাহ সময়ে শিশুটির শরীরে বিশেষ ধরনের টিউমার দেখা যায়। ওই টিউমারের বৃদ্ধি শিশুটির মৃত্যুর কারণ হয়ে দেখা দিত। মার্কিন চিকিৎসকরা সাহসী এক সিদ্ধান্ত নেন। মার্গারেট বোয়েমারের গর্ভধারণের ২৩ সপ্তাহ ৫ দিনে বিশেষ অপারেশন করেন চিকিৎসকরা। তাঁরা বোয়েমারের সন্তানকে ২০ মিনিটের জন্য গর্ভের বাইরে নিয়ে অপারেশন করে টিউমার দূর করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের চিলড্রেনস ফোয়েটাল সেন্টারের উপপরিচালক এবং ব্যবিলন কলেজের মেডিসিনের শিক্ষক ড্যারেল কাস বলেন, গর্ভের শিশুর শরীরে যে টিউমার হয়েছিল তা বিশেষ ধরনের। এই টিউমার শিশুর বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গেই বড় হতে থাকে। এক সময় শিশুর বৃদ্ধির সঙ্গে না পেরে থেমে যায় টিউমার। আবার টিউমার বেড়ে গিয়ে শিশুর মৃত্যু ঘটারও ঝুঁকি থাকে।

ড্যারেল কাস বলেন, বোয়েমারের শিশুর ক্ষেত্রে শেষোক্ত বিষয়টিই ঘটতে যাচ্ছিল। তাই গর্ভধারণের ২৩ সপ্তাহে চিকিৎসার ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলা অপারেশনে শিশুকে মাত্র ২০ মিনিট গর্ভের বাইরে রাখা হয়। পরে আবার এর স্থান হয় মাতৃগর্ভে।

টিউমার অপারেশনের ১২ সপ্তাহ পর চলতি বছরের জুনে সিজার করে আবার মার্গারেট বোয়েমারের কন্যাসন্তান লিনলি বোয়েমারের জন্ম হয়। সম্প্রতি এই চিকিৎসার কথা পশ্চিমা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানান চিকিৎসকরা।

 

মতামত

comments

Post Author: admin