এক বাড়িতে চার নারীকে ধর্ষণ

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার শাহমীরপুর গ্রামে এক বাড়ির চার নারীকে ধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। ধর্ষণের শিকার চার নারীর তিনজনই সম্পর্কে জা এবং অপরজন সে বাড়ির মেয়ে। ঘটনা ১২ ডিসেম্বর রাতে হলেও মামলা হয় পাঁচদিন পর ১৭ ডিসেম্বর। এরই মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে সন্দেহভাজন চারজন।

এদিকে ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি ঐ পরিবারের। চট্টগ্রাম থেকে শাহেদা পিয়ার রিপোর্ট। প্রতিদিনের মতো রাতের খাবার শেষে ঘুমাতে যান ওই বাড়ির বৃদ্ধা মা, প্রবাসী তিন ছেলের বউ ও ক’দিন আগে শ্বশুড় বাড়ি থেকে বেড়াতে আসা সেই পরিবারের এক মেয়ে।

 

কিন্তু রাত একটার দিকে ঘরের ভেতর চার অচেনা পুরুষের আগমনে ঘুম ভেঙে যায় তাদের। কিছু বুঝে উঠতে না উঠতেই তাদের কাছ থেকে কেড়ে নেয়া হয় মোবাইল ফোন ও ঘরের চাবি। পরিবারের সদস্যদের দাবি, জানালার গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে চার ব্যক্তি। এরপর অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা পয়সা লুটপাট শেষে একে একে ধর্ষণ করা হয় বাড়ির তিন বউ ও এক মেয়েকে।

ঘটনার পরদিন কর্ণফুলী থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তাদের পটিয়া থানায় পাঠায়। পটিয়া থানা থেকে তাদের আবার পাঠানো হয় কর্ণফুলী থানায়। পরে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর নির্দেশে মামলা নেয় পুলিশ। এর মধ্য গ্রেফতার হয়েছে সন্দেহভাজন চারজন।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দাবি, প্রবাসী তিন ভাইয়ের এই বাড়িটিতে ডাকাতি নয়, ঘরে পুরুষ না থাকার সুযোগে ধর্ষণের উদ্দেশ্যেই প্রবেশ করেছিলো এলাকার মাদকসেবী কয়েকজন বখাটে। এদিকে, ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি চান ভুক্তভোগীদের পরিবার ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

 

মতামত

comments

Post Author: admin