নরসিংদীতে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় প্রকাশ্যে এক কলেজ ছাত্রীকে মারধর করেছে বখাটেরা। 

 

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নরসিংদী সরকারি কলেজ  ক্যান্টিনের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় নির্যাতিত ছাত্রী বাদী হয়ে সন্ধ্যায় শহরের ব্রাহ্মন্দী এলাকার বখাটে মেহেদী হাসান নিলয়ের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, নরসিংদীর শহরের বৌয়াকুড় এলাকার আলমগীর হোসেনের মেয়ে র্স্বণা আক্তার নরসিংদী সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের অর্নাস ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী।  র্স্বণা কলেজ ক্যান্টিনের সামনে দিয়ে অনার্স ভবনে যাওয়ার সময় একই কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র বখাটে মেহেদী হাসান নিলয় অশ্লীল মন্তব্য করে। স্বর্ণা অশ্লীল মন্তব্যের কারণ জানতে চাইলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে অসদাচরণ এবং গালিগালাজ করে। এর প্রতিবাদ করায় বখাটে নিলয় স্বর্ণাকে এলোপাথাড়ি চর-থাপ্পর মারিয়ে লাঞ্ছিত করে। ওই সময় আশপাশের ছাত্রীরা এগিয়ে আসলে বখাটে নিলয় পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে লাঞ্ছিত কলেজ ছাত্রীর পরিবারের লোকজন বিষয়টি নরসিংদী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলামের নিকট বখাটে নিলয়ের বিচার দাবি জানায়। ওই সময় অধ্যক্ষ বখাটের বিচার না করে উল্টো ছাত্রীকে ৪/৫ জন মিলে চলাচলের পরামর্শ দেন।

নির্যাতিত কলেজ ছাত্রী স্বর্ণা আক্তার বলেন, কলেজ ক্যাম্পাসেও কি আমরা নিরাপদ না। বখাটে প্রকাশ্যে আমাকে ইভটিজিং ও লাঞ্ছিত করলো কিন্তু অধ্যক্ষ স্যার তাঁর বিচার না করে উল্টো আমাকে বাড়াবাড়ি না করার পরামর্শ দিয়েছে। তিনি প্রথমে সিসি টিভির ফুটেজ নষ্ট হয়ে গেছে দাবি করলেও পরে ভিডিও ফুটেজ দিতে বাধ্য হয়। এই ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার না হলে এই কলেজ আঙ্গিনায় কোন ছাত্রী আর নিরাপদ নয়।

নির্যাতিত ছাত্রীর মা জোহরা বেগম বলেন, এই ঘটনার পর আমার মেয়েকে কলেজে পাঠাতে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

নরসিংদী সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাসমত আলী বলেন, থানায় সাধারণ ডায়েরি হওয়ার পর ঘটনাটি গুরুত্বসহকারে নিয়ে বখাটে নিলয়কে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

 

মতামত

comments

Post Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *